বরিশাল নগরীর সড়কে ৩১৫ মরন ফাঁদ, দুর্ঘটনার ঝুঁকি - বরিশালের খবর-Barishaler Khobor

বাংলাদেশ, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, শনিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২১

বরিশাল নগরীর সড়কে ৩১৫ মরন ফাঁদ, দুর্ঘটনার ঝুঁকি - বরিশালের খবর-Barishaler Khobor

বরিশাল নগরীর সড়কে ৩১৫ মরন ফাঁদ, দুর্ঘটনার ঝুঁকি

প্রকাশ: ২৪ নভেম্বর, ২০২১ ২:৪৪ : অপরাহ্ণ

রাহাত খান : বরিশাল নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক সহ অলিগলির রাস্তায় সৃস্টি হয়েছে ৩১৫টি মরন ফাঁদ। সিটি করপোরেশনের রাস্তা কেটে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন লিমিটেড (বিটিআরসি) অপটিক্যাল ফাইবার স্থাপনের জন্য হ্যান্ড হোল করেছে। হ্যান্ডহোল স্থাপনের মাসুল হিসেবে বিটিআরসি সিটি করপোরেশনকে প্রায় ৫ কোটি টাকা পরিশোধ করলেও ক্ষতগুলো মেরামত হয়নি গত ১ বছরে। এ কারনে ওই সব হ্যান্ডহোলের ক্ষততে পড়ে দুর্ঘটনা কবলিত হচ্ছে বিভিন্ন যানবাহন। হতাহত হচ্ছেন যানবাহন চালক ও যাত্রীরা। ব্যস্ততম সড়কে হ্যান্ডহোলের ক্ষতের কারনে যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা এবং যানজটের সৃস্টি হয়।

গত বছর করোনা প্রাদুর্ভাবের সময় বরিশাল নগরীর বিভিন্ন প্রধান প্রধান সহ অলিগলির সড়কের তলদেশে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার অপটিক্যাল ফাইবার স্থাপন করে বিটিআরসি। ক্যাবল স্থাপন এবং গ্রাহকদের সংযোগ দেয়ার সুবিধার্থে প্রধান প্রধান সড়ক এবং অলিগলি সড়কের বিভিন্ন স্থানে কেটে ৩১৫টি হ্যান্ডহোল নির্মান করে তারা। রাস্তা কেটে হ্যান্ডহোল স্থাপন করায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন পয়েন্ট এবং ব্যস্ততম সড়কগুলোতে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃস্টি হয়। হ্যান্ডহোলের স্লাব ঢাকনা দেয়া হলেও হোলের পাশের খানাখন্দ ও গর্তে রিক্সা, সাইকেল, মোটর সাইকেল এবং অটোরিক্সার চাকা পড়ে এসব যান দুর্ঘটনা কবলিত হয়।

ভূক্তভোগী মোটর সাইকেল চালক নুরুল আলম বলেন, গুরুত্বপূর্ন সড়কের পাশের খানাখন্দগুলো মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। ব্যস্ততম সড়কে সৃস্টি হয় যানজটের। গত এক বছরেরও বেশী সময় ধরে খানাখন্দগুলো মেরামত না করায় দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন যানবাহন চালকরা।

অটোরিক্সা চালক হেলাল উদ্দিন বলেন, হ্যান্ডহোলের গর্তে চাকা আটকে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হয় ছোট ছোট যানবাহনগুলো। তিনি দ্রুত সময়ের মধ্যে হ্যান্ডহোলের খানাখন্দগুলো মেরামতের দাবী জানান।

সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল বাশার জানান, নগরীর ৪৫ কিলোমিটার সড়কে বিটিআরসি ৩১৫টি হ্যান্ডহোল করেছে। এ জন্য করপোরশনকে ৫ কোটি টাকা মাসুল দিয়েছে তারা। বর্ষার কারনে এতদিন হ্যান্ডহোলগুলো মেরামত করা যায়নি। সম্প্রতি ওই হ্যান্ডহোলের ক্ষত মেরামতের জন্য টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বাজার রোড পয়েন্টে হ্যান্ডহোলের ক্ষত মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে নগরীর অন্যান্য সকল হ্যান্ডহোল মেরামত করা হবে বলে জানান নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল বাশার।

সূত্র : স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল, বাংলাদেশ প্রতিদিন।

সকল নিউজ